• ঢাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক


Nov 7, 2022
10:41:14

সরকার অসচ্ছল নারীদের মাসে ৩০ কেজি চাল দেবে

দেশের অসচ্ছল নারীদের মাসে ৩০ কেজি করে চাল দেবে সরকার। ভালনারেবল উইমেন বেনিফিট প্রোগ্রামের আওতায় এ চাল দেয়া হবে।

সোমবার (৭ নভেম্বর) সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ভালনারেবল উইমেন বেনিফিট কার্যক্রমের (ভিডব্লিউবি) ২০২৩-২০২৪ চক্রের উপকারভোগী নির্বাচনের জন্য ভালনারেবল উইমেন বেনিফিট মিস ওয়েব পোর্টাল এবং ভালনারেবল উইমেন বেনিফিট অ্যাপ উদ্বোধন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা পারভিন ইন্দিয়া বক্তব্যে বলেন, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় বাস্তবায়িত দেশের গ্রামীণ দুস্থ নারীদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে একটি বৃহত্তর সামাজিক নিরাপত্তামূলক কর্মসূচি। যা নারীদের খাদ্য নিরাপত্তাহীনতা, পুষ্টিহীনতা ও অর্থনৈতিক নিরাপত্তাহীনতা দূর করে আর্থিক স্বচ্ছলতা নিশ্চিত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। এ কর্মসূচির আওতায় আগামী জানুয়ারি থেকে দেশের ১০ লাখ ৪০ হাজার দরিদ্র নারীকে দুই বছর মেয়াদে, প্রতি মাসে খাদ্য সহায়তা হিসেবে পুষ্টি সমৃদ্ধ ৩০ কেজি করে চাল দেয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর হালনাগাদ করা উপজেলার পোভার্টি ম্যাপ অনুযায়ী উপজেলাভিত্তিক উপকারভোগী নির্বাচন করা হবে। ভালনারেবল উইমেন বেনিফিটের উপকারভোগী হবে অসচ্ছল, বিধবা ও তালাকপ্রাপ্তা নারী, যাদের পরিবারের নিয়মিত উপার্জনক্ষম সদস্য বা নিয়মিত আয় নেই এমন নারী। যারা ভূমিহীন ও নিজ মালিকানা জমির পরিমাণ ০.১৫ শতকের কম। ২০ থেকে ৫০ বছর বয়সী নারী ভালনারেবল উইমেন বেনিফিট কার্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত হবে। যে সব পরিবার দৈনিক দিন মজুর হিসেবে জীবিকা নির্বাহ করে এবং মাটির দেয়াল/পাটকাঠি বা বাঁশে তৈরি ঘরে থাকে, যে পরিবারে কিশোরী বা ১৫-১৮ বছর বয়সী মেয়ে অটিজম/প্রতিবন্ধী সন্তান এবং বিদেশ থেকে প্রত্যাগত অভিবাসী নারীরা অগ্রাধিকার পাবে।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, দেশের ৬৪ জেলার ৪৯২ উপজেলায় সব ইউনিয়ন ডিডব্লিউবি কার্যক্রম বাস্তবায়িত হবে। পৌরসভা ও সিটি করপোরশন এলাকায় ভালনারেবল উইমেন বেনিফিট বাস্তবায়ন বা কার্ড প্রদান করা হবে না। ভালনারেবল উইমেন বেনিফিট কার্যক্রম শুরু হওয়ার পর কোনো ইউনিয়ন পৌরসভা/সিটি করপোরশনের অন্তর্ভুক্ত হলে উপকারভোগীদের চলমান খাদ্য সহায়তা ও প্রশিক্ষণ অব্যাহত থাকবে।

এই সময়ে উপস্থিত ছিলেন, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. হাসানুজ্জামান কল্লোল, মহিলা বিষয়ক অধিদফতরের মহাপরিচালক ফরিদা পারভীন ও অতিরিক্ত সচিব ড. মহিউদ্দীন আহমেদ আরও উপস্থিত ছিল বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির সূচির প্রতিনিধিরা।

দুই বছর মেয়াদে ভালনারেবল উইমেন বেনিফিট কার্যক্রমের আওতায় ১০ লাখ ৪০ হাজার উপকারভোগী নির্বাচন করা হবে। তারা ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাস থেকে দুই বছর প্রতি মাসে ৩০ কেজি চাল পাবে। ২০২৫-২০২৬ সাল থেকে ১৫ লাখ উপকারভোগীকে এ কর্মসূচির আওতাভুক্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের।

 

আবেদন প্রক্রিয়া চলবে ৭ নভেম্বর থেকে ২১ নভেম্বর পর্যন্ত। ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার, তথ্য আপা, স্থানীয় কম্পিউটারের দোকান থেকে ১০৯ ও ৩৩৩ হটলাইন নাম্বারে কল করে আবেদন করা যাবে। পার্বত্য ও দুর্গম এলাকা যেখানে ইন্টারনেট সংযোগ নেই সেখানে মোবাইল অ্যাপ ভালনারেবল উইমেন বেনিফিট কার্যক্রমের মাধ্যমে অফলাইনে আবেদনের সুযোগ রয়েছে।